শুক্রবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৩

আন্দোলনটা নিজের চারপাশ থেকেই শুরু করুন না কেনো ?

কদল পশু তাদের অপরাধের জন্য কখনোই অনুতপ্ত হয় না, ভি সাইন দেখিয়ে আপনাকে - আমাকে আমাদের সবাইকে কটুক্তি করে - দম্ভ ভরে বলে ৭১ এ যা করেছিলো তা যতার্থই ছিলো ! বলুনতো , এই সব শুকররা কি করেনি বা কি করার বাকি রেখেছিলো ? এরা আমার আপনার পিতাকে মেরেছে - মা বোনকে ধর্ষন করছে - ধর্মের নামে এরা বাড়ীর পর বাড়ী পুড়িয়েছে - পাকিস্তানী সেনাদের সহচর হয়ে আমার আপনার স্বজন - পড়শিদের লাইন ধরে দাঁড় করিয়ে মেরেছে। আমাদের স্মৃতি শক্তি কি এতো দূর্বল যে সব কিছু ভুলে গিয়েছি ? অনেক দিনতো চুপ করেছিলেন। রাজনৈতিক দলগুলোর ভন্ডামী আর আপোষকামীতায় এরা পরিপুস্ঠ হয়েছে - গাড়িতে পতাকা উড়িয়ে বৈধতা পাবার চেস্টা করেছে। আমরা মেনে নিতে বাধ্য হয়েছি। আর কতো মেনে নিবো ?   এতো সব কিছুর পরও চুপ করে থাকবেন ? সময় হয়েছে জাগবার , বিবেককে জাগাবার - সাহসী হবার।

যুদ্ধে সামিল হতে না পারেন কিন্তু সাহায্যের হাত বাড়িয়েতো দিতে পারেন। তাই না ? যুদ্ধটা নিজের চারপাশ থেকেই শুরু করুন না কেনো। একটু তাকিয়ে দেখলেই দেখতে পাবেন আপনার আমার আশে পাশেই এরা ঘাপটি মেরে আছে , মাঝে সাজেই এদের ধারাল দাঁত বের হয়ে আসে লালচে জ্বিহবার আড়াল থেকে। এদের বর্জন করুন। হয়তো কিছু পশুর বাসায় দাওয়াত খাওয়া থেকে বন্চিত হবেন। হয়তো ১ ডলার বেশী খরচ করে পাকডায়াল ফোন কার্ড কেনার বদলে আরেকটি কার্ড কিনবেন, হয়তো ১ ডলার বেশী খরচ করে ইসলামী ব্যংকে টাকা না পাঠিয়ে অন্য কোনো মাধ্যমে পাঠাবেন । ২/১ ডলারে কি এসে যায় ? ১ কাপ কফিতেই আমরা ৪ ডলার করি হরমেশা। শুধু বর্জন করেই কি সব শেষ হয়ে যাবে ? না - অবশ্যই না। এদের কথার প্রতিবাদ করি। যুক্তি প্রমাণ হাতের নাগালেই আছে। মনে রাখবেন এরা কথায় কথায় ধর্মকে ব্যবহার করে , মিস্টি মিস্টি কথায় মনের হিংস্রতা লুকিয়ে রাখে।

এরা যখন বলে এতো বছর পর বিচার কিসে ! তখন কি একবারের জন্যও মনে হয় না আপনার সেই চাচার কথা যাকে এই জামাতিরা বেয়নেটে খুঁচিয়ে মেরেছিলো বা একবারের জন্যও কি মনে হয় না যে এরা আপনার স্বজনকে পাকিস্তানি সেনাদের হাতে ধর্ষিত হবার জন্য? এর পরও কি "এতো বছর পর বিচার কিত্তে?" জাতীয় কথায় আপনার রক্ত গরম হয় না না?

আমরা আমাদের সন্তানদের কাছে কি জবাব দেবো যখন তারা জিগেস করবে বাবা/মা তুমি করেছিলে ? সন্তানের কাছে ভীরু - কাপুরুষ হিসেবে দাঁড় করাতে কেমন লাগবে ? আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে একবার ভাবুনতো। কে বাম পন্হী - কে আওয়ামী লিগার - কে বিএনপি করা , সব ভুলে যান। দলমতের উর্ধে বলুন বিচার চাই - যুদ্ধাপোরাধীদের বিচার চাই - এই সব জামাতিদের ফাঁসি চাই- ধর্মকে ব্যবহার করা রাজনীতি নিষিদ্ধ চাই। মনে রাখা উচিৎদলের আগে দেশ আগে।

একদল সাহসী মানুষ নিরাপদে ঘরে বসে বড় বড় কথা বলতে পারতো। তা না করে এরা রাস্তায় নেমে এসে প্রতিবাদ করছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষগুলো যখন শাহবাগে নেমে বিচার দাবি করছে তখন আমি আমার বিবেকের কাছে দগ্ধ হচ্ছি কিছু না করতে পেরে। অনেক কিছুই করার আছে। আসুন হাতে হাত মিলিয়ে আমরাও সেই যুদ্ধে শামিল হই। জয়বাংলা  জয় মানুষ ॥

৩টি মন্তব্য :

  1. poriborton kora r aandolon korar maje oken farak. amra ashole ki chai??? pbotibad korte chai kintu kivabe. shob shomoe keno khun chokhe thake. shanti keno naa.

    উত্তর দিনমুছুন
  2. সম্মিলিত প্রতিবাদের একটা মাধ্যম হচ্ছে আন্দোলন। যেকোনো ভাবেই তা হতে পারে, নিজের সাথে নিজে, আশে পাশের সবাইকে নিয়ে, কখনোবা সেটা বিপ্লবের মাধ্যমে।

    উত্তর দিনমুছুন

আপনার মন্তব্য পেলে খুশি হবো, সে যত তিক্তই হোক না কেনো।
পোস্টে মন্তব্যের দায়-দায়িত্ব একান্তই মন্তব্যকারীর। মন্তব্য মডারেশন আমি করি না, তবে অগ্রহনযোগ্য ( আমার বিবেচনায় ) কোনো মন্তব্য আসলে তা মুছে দেয়া হবে সহাস্য চিত্তে।