সোমবার, ২ আগস্ট, ২০১০

২ - ফেসবুক নামা

ফেসবুকে প্রাইভেসী নিয়ে অনেকের চরম অসর্তকতা আবার অনেকের অতি সতর্কতা বেশ লক্ষ্যনীয় । কেউ কেউ হয়তো এমন সতর্ক যে নিজের দেয়াল টুকুও দেখাতে চান না। হয়তো বন্ধু তালিকা বা ব্যক্তিগত তথ্য যা সবার সাথে শেয়ার করা যাচ্ছে না তা লুকিয়ে রাখা যায় কিন্ত দেয়াল ঢেকে রেখে বন্ধু হবার আমন্ত্রন জানানো যেনো সেই সারস পাখি আর  দুস্ট শেয়ালের পাল্টা পাল্টি দাওয়াতের কথা মনে করিয়ে দেয় । ছবি নিয়ে সতর্কতা অবশ্যই বুদ্ধিমানের কাজ, আজে বাজে লোক বা ভদ্রতার মুখোশ পড়া অনেকেই ফেসবুকে ঘুরে বেরুচ্ছে। হয়তো কারো এলবামের ছবি  চুরি করে বাজে চিন্তা করছে। যা কিছু সবার সাথে শেয়ার করা যায় না তা একান্তই নিজের কাছে রেখে দিয়ে সবার কাছে খোলামেলা থাকাই  সুবিবেচনার লক্ষন বলে মনে করি।

ব্যক্তিগত ভাবে আমি প্রাইভেসী নিয়ে সচেতন। যা কিছু একান্তই আমার তা লুকিয়ে রাখি সযতনে। বন্ধুদের সাথে যা কিছু শেয়ার করা শোভন তা ‌উদার হস্তে শেয়ার করি। যাদের চিনি না তাদের বন্ধু তালিকায় যোগ করি না। প্রাইভেসী সেটিংকে এমন ভাবে রাখতে পছন্দ করি যাতে কোনোভাবেই তা বন্ধুদের বিরক্তের কারন না হয়ে দাঁড়ায়।

ফেসবুকে ঘুরে ঘুরে প্রাইভেসী সেটিংস নিয়ে অনেকের অসতর্কতা দেখে খারাপ লাগে। বিশেষ করে অনেক মেয়ে যারা প্রাইভেসী সেটিংস এর ধারে কাছেও যায়নি। যে কেউ ইচ্ছে করলে তার মোবাইল নাম্বার থেকে শুরু করে একান্ত ব্যক্তিগত বা পারিবারিক ছবি চুরি করতে পারে। প্রচুর নোংরা মানুষ আছে যারা এর অসৎ ব্যবহার করে ও করছে। এব করার জন্য কারো ফেইসবুক হ্যাক করার প্রয়োজন হয় না। 




পৃথিবীটা গোল , কমলা লেবুর মতো গোল। ছোট বেলা সুর করে পড়তাম। বিজ্ঞানে কি বলেছে তার ধারে কাছে যাচ্ছি না। ফেসবুক ব্যবহার করে এমন অনেকের সাথে যোগাযোগ হচ্ছে যাদের সাথে ফেসবুক ছাড়া হয়তো যোগাযোগ করাই সম্ভব হতো না। মাঝে সাজে বন্ধুদের বন্ধু তালিকা খুঁজতে গিয়ে হাড়িয়ে যাওয়া বন্ধু খুঁজে পাই, মাঝে সাজেতো যাকে না যাদের খুঁজে পেতে চাই না তাদেরও খুঁজে পাই বন্ধু তালিকায়। হয়তো আমি "ক" অমুক "খ" কে এককালে খুব ভালো ভাবে চিনতাম কিন্তু এখন চিনি না বা ভুলে যাবার চেস্টা করি কিন্তু যখন আবিস্কার করি আমারই কোনো বন্ধুর বন্ধু তালিকায় সে উপস্থিত তখন বেশ অসস্থি হয়। যদিও কিছুই করার নেই তবুও। এজন্যই মাঝে সাজে মনে হয় পৃথিবীটা খুব ছোট, তার চাইতেও ছোট্ট আমাদের চেনাজানার গন্ডীটুকু।

ফেসবুকের মাধ্যমে চেনা অনেকর সাথে সামনা সামনি পরিচিত হতে পারলে বেশ মজা লাগে। গত মাসে ক্যানবেরার শীতের পিঠা উৎসবে এমনি একজনের সাথে পরিচয় হয়েছিলো। ফেসবুকে অনেক দিনই যুক্তি ছিলেন, মাজে সাজে মন্তব্য চালাচালীও হতো। কিন্তু সামনা সামনি দেখা হয়নি। পিঠা উৎসবে মেঝেতে আসন পেতে কবিতা পড়বার সময় আবিস্কার করলাম এ যে সেই মানুষটি। পরিচয় দেবার পর আমাকে বল্লেন আপনাকে ছবির সাথে মেলানো যায় না, আমি বলি " প্রোফাইলের ছবিতে যে কম বয়সী ছবি দিয়েছি"। আমি উনাকে বলি আপনাকে অনেক কম বয়সী লাগছে প্রোফাইলের ছবির চাইতে। উনি হাসেন। সিডনী থেকে আসা আকাশ নামের বন্ধুটি বয়সে বড় হলেও ভালো লেগেছিলো সামান্য সময়ের সেই পরিচয় পর্বটুকু।

ফেইসবুকে অনেকের নানা রকম এপ্লিকেশন নিয়ে মেতে থাকতে দেখি। এ ব্যপারে আমার ধারনা কম কারন আমি কোনো এপ্লিসকেশন ব্যবহার করি না। আরেকটি বাজে জিনিস হলো আজে বাজে ছবিতে নিজেকে ট্যাগ করে দেয় অজান্তেই যাতে অনেক সময়ই বাজে পরিস্থিতিতে পরতে হয়। অবশ্য সামান্য একটু কস্ট করলেই এটা থেকে বাঁচা যায়। Account > Privacy Settings > Profile Information-এ যেতে হবে । সেখানে Photos and Videos of me অপশন Only me সিলেক্ট করে নিতে হবে । এতে করে কেউ আমাকে কোন ছবি বা ভিডিওতে ট্যাগ করলে সেটা শুধুমাত্র আমিই দেখতে পারবো, দুনিয়া শুদ্ধ দেখতে পারবে না।

ফেসবুক আমি উপভোগ করি। সময় কাটাতে - বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ রাখতে দারুন জিনিস। তবে ফেসবুকে ঢুবে থাকতে পছন্দ করি না। অতিরিক্ত সব কিছুই খারাপ। 


রস আলোতে ফেসবুক নিয়ে প্রকাশিত ৩ টা কার্টুন দিলাম। এর সত্ব প্রথম আলোর। আমি উসিলা মাত্র। 

 









1 টি মন্তব্য :

  1. হাহা! কার্টুন গুলো দেখা হইছিলো আগে।
    ফেইসবুকে আসলেই সচেতন থাকা উচিত।

    এজন্যই মাঝে সাজে মনে হয় পৃথিবীটা খুব ছোট, তার চাইতেও ছোট্ট আমাদের চেনাজানার গন্ডীটুকু।

    একমত

    উত্তর দিনমুছুন

আপনার মন্তব্য পেলে খুশি হবো, সে যত তিক্তই হোক না কেনো।
পোস্টে মন্তব্যের দায়-দায়িত্ব একান্তই মন্তব্যকারীর। মন্তব্য মডারেশন আমি করি না, তবে অগ্রহনযোগ্য ( আমার বিবেচনায় ) কোনো মন্তব্য আসলে তা মুছে দেয়া হবে সহাস্য চিত্তে।