বুধবার, ৪ জুলাই, ২০০৭

হালাল - হারাম দ্বন্ধ


বিদেশে আসার পর হালাল-হারামের দ্বন্ধ অনেকেই পড়ে, মাঝে মাঝে সেইটা হাস্যকর পর্যায়ে পড়ে যায় . অনেককেই দেখেছি বিয়ার হাতে হালাল মাংস খেতে , যেনো হালাল মাংস ছাড়া বেহেশতে প্রবেশ করা যাবে না, বিয়ার-ওয়াইন খাইলে সমস্যা নাই মাগার হালাল মাংস ছাড়া ইসলাম চলে যাবে ! সাদা মেয়ের নিতম্বের দুলুনি দেখতে দেখতে হালাল মাংসের সন্ধান !

আমার অভিগ্যতা বলে মাছ , সবজি ও ডাল ছাড়া হালাল খোঁজা বেকুবি, সুপার মার্কেটে যেসব মাংস পাওয়া যায় সেটা আর যাই হোক তথাকথিত হালাল না

অনেক মুসলিম বুচারিতে হালাল মাংস পাওয়া যায় গরু, ছাগল বা ভেড়ার ক্ষেত্রে কিছুটা ঠিক হলেও মুরগির মাংসের ক্ষেত্রে হালাল খোঁজা বেকুবি 1/2 টা মুরগি আল্লাহু আকবর বলে জবাই করা গেলেও শত শত বা হাজার মুরগিকে নিশ্চই ওই ভাবে জবাই করে হালাল করা সম্ভব না । আমারতো গুরু-ছাগল-ভেড়ার ক্ষেত্রেও সন্দেহ আছে

ক্যানবেরাতে 2 টা মুসলিম বুচারি আছে, একবার জিগ্যাসা করাতে তারা 38 দাঁত বের করে হেসে বলেছিলো রেকর্ড করে আল্লাহু আকবর শোনানো হয় , আর মেশিনে গলা কাটা হয় ,আসলেই মজার হালাল,

ম্যাকডোনালডস, কে.এফ.সি, বাগার্র কিং ইত্যাদি ফাস্ট ফুড রেস্টুরেন্ট গুলোতেও হালাল মাংস খোঁজা বেকুবি, এইসব দানব চেইন রেস্টুরেন্ট গুলো নির্দিষ্ট কিছু সাপ্লায়ারের কাছ থেকে মাংস কেনে, তারা হয়তো কিছু নির্দিষ্ট রেস্টুরেন্টে হালাল মাংস সাপ্লাই দেয়। তবে আমার ধারনা সেইটাও সেই রেকর্ড করা হালাল করা, কিছু টার্কিশ ও লেবানিজ রেস্টুরেন্ট এ অবশ্য হালাল মাংসের কাবাব পাওয়া যায়। তবে সেই মাংসও যে রেকর্ড বাজানো হালাল না সেইটার গ্যারান্টি কেউ দিতে পারবে না,

দেশেও দেখেছি 2 জনে মিলে গরু জবাই করতে, মৌলভিকে আসে পাশে দেখি নাই, নিউমার্কেটে একজনরে দেখেছি একাই মুরগি জবাই করতে, সেইটাও হালাল,

আমি ব্যক্তিগত ভাবে এতো খুঁত খুঁতে না। তবে বুঝে শুনে খাই ও কিনি। পর্ক আমি কখনই খাই না বা খাবার চেষ্টা করি নাই। এক রেস্টুরেন্টে কামলা খাটতাম। সেইখান কার শেফ আমাকে বলেছিলো কিছু কিছু খাবারে পর্ক ফ্যাট ব্যবহার করে থাকে। এ জন্য এনিমেল ফ্যাট থাকলে সেই খাবার কিনি না। নতুন কিছু খাবার খেতে দিলে জিগ্যেস করে নেই, সন্ধেহ হলে খাই না। আর হালাল শব্দটা এখন পরিচিত শব্দ। হালাল লেখা দেখে কিনি। ড্রিংক করি না। এই পর্যন্তই আমার হালাল-হারাম দ্বন্ধ।

বিয়ার হাতে হালাল মাংসের কাবাব খেতে খেতে শেতাংগেনী মেয়ের খোলা বুক-পিঠ-পা দেখলে হালাল কি আর হালাল থাকে ? সবাই না হলেও সংখায় এরা অনেক। আর ইসলামকে নিজের মতো করে ডিফাইন্ড করলে কার কি আসে যায়। যে বেশী খূঁত খূঁতে তার বাহিরে না খাওয়াই উচিৎ।
-----------
অসল মস্তিস্কের প্রলাপ
২০০৭-০৩-২৭ ০৮:২৫:৪৬

৪টি মন্তব্য :

  1. ধন্যবাদ মাহবুব ভাই । এইখানে লেখা কি বন্ধ ?

    উত্তর দিনমুছুন
  2. লেখা বন্ধ না, আসলে নিজের জীবন নিয়ে কিছুটা ব্যাস্ত। তাই লিখতে পারছি না খুব একটা। তবে লিখব সব জায়গাতেই।

    উত্তর দিনমুছুন
  3. এত অজুহাত দেয়ার কী আছে? যা মন চায় করুন না, কারও ক্ষতি না হলেই হল। :)

    উত্তর দিনমুছুন
  4. অজুহাত না রে ভাই, ওটা ছিলো প্রলাপ। লেখার সবচেয়ে নিচের লাইনটা লক্ষ্য করুন।

    উত্তর দিনমুছুন

আপনার মন্তব্য পেলে খুশি হবো, সে যত তিক্তই হোক না কেনো।
পোস্টে মন্তব্যের দায়-দায়িত্ব একান্তই মন্তব্যকারীর। মন্তব্য মডারেশন আমি করি না, তবে অগ্রহনযোগ্য ( আমার বিবেচনায় ) কোনো মন্তব্য আসলে তা মুছে দেয়া হবে সহাস্য চিত্তে।